শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০১৫

'শক্তির জায়গাগুলোকে আরও শক্তিশালী করার চেষ্টা করি'

ক্রিকেট বিশ্বের সব ব্যাটসম্যানেরই কিছু বিশেষ খেলার ভঙ্গি থাকে। যে ভঙ্গিতে খেলতে ব্যাটসম্যান স্বাচ্ছ্যন্দবোধ করেন। যেমন ব্রায়ান লারা একটু ব্যাকফুটে গিয়ে শট করতে পছন্দ করতেন, আবার তামিম ইকবাল সামনের দিকে এগিয়ে এসে খেলতে পছন্দ করেন। সাকিব আল হাসান স্কুপ শট বা সৌম্য সরকার পেরিস্কুপ শট খেলতে বরাবরই পছন্দ করেন।
তেমনি ব্রায়ান লারার ভক্ত মুশফিকুর রহিম স্লগ সুইপ শট খেলতে পছন্দ করেন। এই ভাবে খেলতেই স্বাচ্ছ্যন্দবোধ করেন বেশি। তবে কি শুধু অনুশীলন নাকি সহজাত ভাবেই এ শট খেলেন , এমন প্রশ্নের উত্তরে বেশ সময় নিয়ে কিভাবে এই শট খেলার শুরু, সবকিছু গুছিয়ে উত্তর দেন মুশফিক।
তিনি বলেন, ‘অনূর্ধ্ব-১৩,অনূর্ধ্ব-১৫ ক্রিকেটে থাকতেই এই শটটা খেলতে চেষ্টা করতাম। ইদানীং ক্রিকেট অনেক বদলে যাওয়ায় বেশি খেলছি। ওয়ানডে,টি-টোয়েন্টি এমনকি টেস্টেও বোলারদের চাপে রাখতে বা ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলতে বাড়তি শট থাকতে হয়। স্লগ সুইপ তেমনই একটা শট। আমি এটাকে প্রকৃতিপ্রদত্তই মনে করি। স্লগ সুইপ আমাকে শিখতে হয়নি। তবে বিকেএসপিতে প্রথম দিকে মতি স্যার বলেছিলেন,সুইপ শটগুলো একজন কিপার-ব্যাটসম্যানের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ কিপারদের অনুমান ভালো থাকে। আর অনুমান ভালো থাকলে সুইপ শটে অনেক সুবিধা হয়।’
তিনি আরো বলেন, ‘অবশ্য স্লগ সুইপই আমার একমাত্র পছন্দের শট নয়,কাভার ড্রাইভও অনেক ভালো লাগে। এটা অনুশীলন করে রপ্ত করতে হয়েছে। ব্যাটিংয়ে আমার আদর্শ ব্রায়ান লারার কাভার ড্রাইভ দেখে এই শটটা ভালো করার প্রেরণা পেয়েছি। ক্রিকেটে একটা সুন্দর কাভার ড্রাইভের চেয়ে বড় শিল্প আর কিছু নেই।’
সহজাত হলেও স্লগ সুইপ আরো ভালোভাবে খেলতে অনুশীলনে বেশি সময় ধরে কাজ করছেন। এ বিষয়ে মুশফিক বলেন, ‘যেটা আমার শক্তির জায়গা, প্রতিপক্ষ কিন্তু সেটা নিয়েই বেশি পরিকল্পনা করে। অন্যদিকে আমি চাই আমি আমার শক্তির জায়গা থেকে সর্বোচ্চ সুবিধা নিতে। অনেকেই নিজের দুর্বল জায়গা নিয়ে বেশি কাজ করে,আমিও করি। তবে গুরুত্ব দিই শক্তির জায়গাগুলোকে আরও শক্তিশালী করার ওপর। দুর্বল জায়গা নিয়ে খুব বেশি অনুশীলন করে লাভ নেই, কারণ আমি ওই সব শট কম খেলি।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন