রবিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৫

বিপিএলের বকেয়া বুঝে পেলেন ক্রিকেটাররা

ঢাকা: তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম এবং মাশরাফি বিন মর্তুজার হাতে চেক তুলে দিয়ে বকেয়া পাওনা পরিশোধের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা। এছাড়া বোর্ডের হিসাব বিভাগের কাছে প্রায় ৭০ ক্রিকেটারের চেক পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। রোববার সেখান থেকে নিজেদের পাওনা বুঝে নিয়েছেন বিপিএলের প্রথম দুই আসরে অংশ নেওয়া অনেক দেশি ক্রিকেটাররা।
বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে অংশ নেয়া সাত দলের ক্রিকেটারদের বকেয়া হিসাব করে প্রায় ৫ কোটি টাকার বাজেট দেয়া হলেও শেষ পর্যন্ত আড়াই কোটি টাকা ভাগ করে দেওয়া হচ্ছে মাত্র ৭০ ক্রিকেটারের মধ্যে।
আর এ তালিকা প্রস্ততের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) এর সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল এ বিষয়টি নিয়ে রোববার বলেন, ‘আনুমানিক ৭০ জন খেলোয়াড়ের মতো পাবে। তবে রংপুর রাইডার্সের ফ্র্যাঞ্চাইজি নিজেরা পেমেন্ট করতে চায়। যে কারণে আজ রংপুর রাইডার্সের পেমেন্ট করা সম্ভব হচ্ছে না। আশা করছি কিছু দিনের মধ্যেই রংপুর রাইডার্সের পেমেন্টও হয়ে যাবে। বিপিএলে যত দেশি ক্রিকেটার অংশ নিয়েছে সবাই টাকা পাচ্ছে।’
এদিকে কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি টাকা না দিয়েই ক্রিকেটারদের আগেই স্বাক্ষর নিয়ে নিয়েছে। অনেক ক্রিকেটারের এমন অভিযোগ থাকলেও সে সব আমলে নিতে রাজি নয় বিপিএল কাউন্সিল।
রোববার এ প্রসঙ্গে আফজালুর রহমান বলেন, ‘চিটাগাং কিংসের অনেক খেলোয়াড়ই এর আগে আপত্তি তুলে ছিলেন যে ফ্র্যাঞ্চাইজি তাদের স্বাক্ষর নিলেও বুঝিয়ে দেয় হয়নি টাকা। ফ্র্যাঞ্চাইজিদের বলা হয়েছে যদি তারা পেমেন্ট করে থাকে খেলোয়াড়দের সইসহ দিতে হবে। কিন্তু এখন কোনো খেলোয়াড় যদি সই করে টাকা না নেয়, আপনি যদি একটা কাগজে সই করলেন সবকিছু বুঝে পেলাম তারপর বললেন আমি বুঝে পাই নাই, সে ক্ষেত্রে আমরা কী করব? এর দায় তো কেউ নিতে পারবে না। কোনো খেলোয়াড় যদি ডকুম্যান্টে সাইন করে টাকা না নেয়। সেই দায়িত্বতো বোর্ড নেবে না।’
এসব ছোটখাট ঝামেলা ছাড়া পুরো বিষয়টি চমৎকারভাবে সম্পন্ন হওয়ায় দারুণ সন্তুষ্ট বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আফজালুল রহমান সিনহা। রোববার বিসিবি কার্যালয়ে সিনিয়র তিন ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবালের হাতে চেক তুলে দিয়ে বকেয়া পাওনা পরিশোধের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ।
এ প্রসঙ্গে তিনি বলে, ‘আমাদেরও খারাপ লাগছিল। আমরা চাইনি তারা বঞ্চিত হোক। ক্রিকেটারদের চুক্তি ছিল ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজি ফেল করায় সেটা আমরা দিয়ে দিচ্ছি। সব মিলিয়ে আনুমানিক ২ কোটি টাকা। যারা একদমই পায়নি বা যাদের বকেয়া ছিল তাদের দিয়ে দেয়া হয়েছে। ওরা তিনজন (মাশরাফি, মুশফিক, তামিম) যেহেতু সিনিয়র তাই ওদের আগে দিয়েছি। বাকিরা হিসাব বিভাগ থেকে নিয়ে নেবে। আজই দেওয়া শেষ হয়ে যেতে পারে।’
ক্রিকেটারদের বকেয়া তুলে দেয়ার পর আফজালুর রহমান আশা প্রকাশ করেন, ক্রিকেট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকায় সামনে আর পাওনা নিয়ে জটিলতার কোনো ব্যাপার থাকবে না। তবে এখনও নিশ্চিত হয়নি বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা অ্যাম্পায়ার, স্কোরারসহ ম্যাচ অফিসিয়ালদের বকেয়া। এ নিয়ে সিনহা বলেন, ‘আম্পায়ার এবং অন্য বিষয়গুলোতে যে বকেয়া রয়েছে, তা গেম-অনের দেওয়ার কথা ছিল। ওদের সঙ্গে কি সমস্যা হয়েছে এই সব আমরা জানি না। সেখানে কিছু কিছু অভিযোগ আমরা পেয়েছি। বোর্ড এগুলো দেখে এরপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কি হবে। এগুলোর সবই অভিযোগের ভিত্তিতে বিসিবি সিদ্ধান্ত নেবে।’

ওয়ান নিউজ বিডি

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন